Main Menu

ধর্ষণের শিকার হলো ৪ বছরের শিশু, হাসপাতালে ভর্তি

মাদারীপুরের নিকটবর্তী মুকসুদপুর উপজেলার উত্তর গঙ্গরামপুর গ্রামে ৪ বছরের এক শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনায় নির্যাতিতা শিশুকে প্রথমে রাজৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য মাদারীপুর সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে।

হাসপাতাল ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর থানার উত্তর গঙ্গরামপুর গ্রামের এক দিনমজুরের শিশু কন্যাকে একই গ্রামের এমারাত মোড়লের ছেলে আর্থিন মোড়ল (১৫) বাড়ির পাশের পাটক্ষেতে নিয়ে পাশবিক নির্যাতন করে। পরে নির্যাতিতার মা টের পেলে শিশুটি ফেলে রেখে পালিয়ে যায় আর্থিন। ঘটনাটি ঘটেছে বুধবার (১৯ জুন) দুপুরে। পরে স্থানীয় কয়েক সালিশদার বিষয়টি সালিশ মিমাংসার চেষ্টা করে।

এই ঘটনায় নির্যাতিতা শিশুর মা শিশুটিকে প্রথমে রাজৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বুধবার রাতেই মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।

নির্যাতিতা শিশুর মা বলেন, বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে আমার মেয়ের সাথে খারাপ কাজ করেছে। পরে আমি বাড়ির পাশের পাটক্ষেতে গিয়ে দেখি আমার মেয়ে উলঙ্গ অবস্থায় পরে আছে। আমাকে দেখে ওই ছেলে পালিয়ে গেছে। আমরা গরীব মানুষ। প্রথমে এলাকার লোকজন সালিশ করে দিবে বলেছিল। পরে আর কিছু করেনি। আমি এর বিচার চাই।

এ ব্যাপারে স্থানীয় মাতুব্বর ফিরোজ মল্লিক বলেন, বিষয়টি আমি জানি। সত্য ঘটনা তো চাপা থাকেনা। অনেকেই চেয়েছিল সালিসের নামে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে। আমি মেয়েটিকে হাসপাতালে ভর্তি করে থানায় মামলা করার পরামর্শ দিয়েছি। ওই ছেলে এর আগেও একটি মেয়ের সাথে এমন ঘটনা ঘটিয়েছে। ছেলের চরিত্র ভালো না।

মাদারীপুর সদর হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেলের প্রোগ্রাম অফিসার মিনারা হোসেন বলেন, ধর্ষণ জনিত ঘটনা নিয়ে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে একটি শিশু ভর্তি হয়েছে। বিভিন্ন আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে।

এব্যাপারে মুকসুদপুর থানার ওসি মোস্তফা কামাল পাশা বলেন, গ্রামে এই ধরনের ঘটনাগুলো চাপিয়ে রাখার চেষ্টা করা হয়। বিষয়টি আমি জানি না। জেনে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।






News Room - Click for call