1. admin@amaderpotrika.com : admin :
  2. anisurladla71@gmail.com : Anisur :
  3. info.popularhostbd@gmail.com : PopularHostBD :
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০২:২৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ ও আদিতমারী উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হলেন যারা লালমনিরহাটে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান দত্তক নিয়ে মেয়ের মা হলেন পরীমনি লালমনিরহাটে দুনীর্তি প্রতিরোধ ও সচেতনতা বিষয়ক র‌্যালী ও বির্তক প্রতিযোগিতা ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রথম ধাপের ১৫০ উপজেলায় ৩ দিন বাইক চলাচলে নিষেধাজ্ঞা লালমনিরহাটের সাপ্টিবাড়িতে পুকুরে বিষ প্রয়োগে মাছ নিধন- মাছের সাথে এ কেমন শত্রুতা জাতীয় পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় লালমনিরহাটে ফুটবল টিমকে সংবর্ধনা সংসদ সদস্যরা প্রার্থীর হয়ে প্রচারনা করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে-লালমনিরহাটে ইসি রাশেদা সুলতানা ভোট দিতে একসঙ্গে ঢালিউডের ‘তিন কন্যা’, জানালেন প্রত্যাশা গত নির্বাচনের পুনরাবৃত্তি চান না আসাদুজ্জামান নূর

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় বালু-মহাল বন্ধের দাবীতে স্থানীয় কৃষদের মানববন্ধন

হাতীবান্ধা (লালমনিরহাট)প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ১৪ জানুয়ারী, ২০২৩
  • ১১৫ বার পড়া হয়েছে

লাললমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার উত্তর পারুলিয়ার প্রায় তিন একর ফসলি জমি বালু-মহাল বন্ধের দাবীতে স্থানীয় ভুক্তভোগী কৃষকরা মানববন্ধন করেছে।
শনিবার দুপুরে হাতীবান্ধা উপজেলার উত্তর পারুলিয়া তিস্তা নদীর চরে স্থানীয় কৃষকরা ঘন্টাব্যাপি এ মানববন্ধন করে। এতে প্রায় দু’ শতাধিক কৃষক মানববন্ধনে অংশগ্রহন করেন।
মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, পাটিকাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মুজিবুল আলম সাদাত, স্থানীয় কৃষকদের মধ্যে হুমায়ুন কবির, মনিরুজ্জামান,  দেবাশীষ রায়, জাদু মিয়া, শফিকুল ইসলাম, ইব্রাহীম, দেলোয়ার হোসেন প্রমুখ।
বক্তারা বলেন,  এখানে আমাদের অনেকের বসতভিটে রয়েছে। এছাড়া  তিস্তা নদীর জেগে উঠা চরে ভুট্টা, মরিচ, পিঁয়াজ, আলু, রসুনসহ নানাবিধ ফসল ফলানো হয়। যা দিয়ে আমরা পরিবার পরিজন নিয়ে সুখে শান্তিতে রয়েছি। কিন্তু ওই জমিতে বালু-মহাল করা হলে আমরা পথে বসে যাবো। ১৯৪০ ও ১৯৬২ সালের রেকর্ড মূলে ওই জমির মালিক আমরা। কিন্তু তথ্য ভুল করে স্থানীয় প্রশাসন ১৯৯০ সালের রেকর্ডে ১নং খাস খতিয়ানভুক্ত করেছেন। ওই জমিতে বালু-মহাল করার প্রক্রিয়া বন্ধ ও রেকর্ড সংশোধনের দাবী করছি।
এ বিষয়ে হাতীবান্ধা উপজেলা সহকারী কমিশনার ( ভূমি) লোকমান হোসেন বলেন, বিভাগীয় কমিশনার মহোদয়ের নির্দেশক্রমে বিআরএসে খাস খতিয়ানভুক্ত তিস্তার চরাঞ্চলের কয়েকটি স্থানে বালু-মহাল করার প্রস্তাবনা পাঠানো হয়েছে। তবে স্থানীয় কৃষকদের আপত্তি থাকলে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।

সংবাদ টি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved
Design BY POPULAR HOST BD