1. admin@amaderpotrika.com : admin :
  2. anisurladla71@gmail.com : Anisur :
  3. info.popularhostbd@gmail.com : PopularHostBD :
বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০২:৪০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ ও আদিতমারী উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে নির্বাচিত হলেন যারা লালমনিরহাটে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান দত্তক নিয়ে মেয়ের মা হলেন পরীমনি লালমনিরহাটে দুনীর্তি প্রতিরোধ ও সচেতনতা বিষয়ক র‌্যালী ও বির্তক প্রতিযোগিতা ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রথম ধাপের ১৫০ উপজেলায় ৩ দিন বাইক চলাচলে নিষেধাজ্ঞা লালমনিরহাটের সাপ্টিবাড়িতে পুকুরে বিষ প্রয়োগে মাছ নিধন- মাছের সাথে এ কেমন শত্রুতা জাতীয় পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় লালমনিরহাটে ফুটবল টিমকে সংবর্ধনা সংসদ সদস্যরা প্রার্থীর হয়ে প্রচারনা করলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে-লালমনিরহাটে ইসি রাশেদা সুলতানা ভোট দিতে একসঙ্গে ঢালিউডের ‘তিন কন্যা’, জানালেন প্রত্যাশা গত নির্বাচনের পুনরাবৃত্তি চান না আসাদুজ্জামান নূর

হত্যা মামলার আসামিদের পক্ষে বর্তমান চেয়ারম্যানের বক্তব্যের জের ধরে লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় দুপক্ষের সংঘর্ষে সাবেক চেয়ারম্যানসহ আহত ৮

লালমনিরহাট প্রতিনিধি
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১০ অক্টোবর, ২০২৩
  • ৬৫ বার পড়া হয়েছে

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলার ভেলাগুড়ি ইউনিয়নে  বর্তমান ও সাবেক চেয়ারম্যানের দু‘পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় উভয় পক্ষের ৮জন আহত হয়েছেন।এতে ভাংচুর করা হয় ৫টি মটরসাইকেল। ভেলাগুড়ি ইউনিয়নে  একটি হত্যা মামলার আসামিদের পক্ষ নিয়ে মানববন্ধন করে‘ মামলায় সাবেক চেয়ারম্যান মহির উদ্দিনের”হাত রয়েছে উল্লেখ করে বক্তব্য দেন বর্তমান চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম মন্ডল। ওই বক্তব্যের একদিন পর মঙ্গলবার দুপুরে বর্তমান ও সাবেক চেয়ারম্যানের দু‘পক্ষের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে সাবেক চেয়ারম্যান মহির উদ্দিন ও তার ছেলে এবং বর্তমান চেয়ারম্যানের ভাইসহ উভয় পক্ষের অন্তত ৮ জন আহত হয়েছেন। এর মধ্যে চারজন রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও চারজন হাতীবান্ধা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আহতরা হলেন,হাতীবান্ধা  উপজেলার ভেলাগুড়ি ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মহিরউদ্দিন(৫৫) ও তার ছেলে জাহাঙ্গীর আলম(২৫), বর্তমান চেয়ারম্যান শফিকুল মন্ডলের ছোট ভাই এটিএম শহিদুল ইসলাম(৩৫), সাদিকুল ইসলাম (২৮), জ্যাঠাতো ভাই আজিজুল ইসলাম(৫৫) ও ইদ্রিস আলী(৬৩)সহ আরো কয়েকজন আহত হন।এদের মধ্যে সাদিকুল, ইদ্রিস, মহিরউদ্দিন ও জাহাঙ্গীর আলম রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং শহিদুল ইসলাম,আজিজুল হাতীবান্ধা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে এবং আহত আরো দুজন প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়িতে চলে যান।

জানা গেছে, গত সোমবার (২ অক্টোবর) ভেলাগুড়ি ইউনিয়নের দক্ষিন জাওরানী গ্রামে জমিসংক্রান্ত বিরোধের জেরে বকছার আলী ও আঃজব্বার গ্রুপের সংঘর্ষ হয়। এতে আহত হয়ে বকছার আলীগত শুক্রবার রংপুর মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এনিয়ে নিহত বকছারের ছেলে জহুরুল বাদী হয়ে ১৩ জনের নাম উল্লেখ করে স্থানীয় থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলার এজাহারভুক্ত আসামি রমিজ উদ্দিন নামের একজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তবে গ্রেফতারের পর থেকেই বর্তমান চেয়ারম্যান শফিকুল মন্ডল ও তার লোকজন দাবী তুলেন যে,দায়েরকৃত মামলায় নিরাপরাধ লোকজনের নাম দেয়া হয়েছে। এনিয়ে গতকাল সোমবার বিকেলে দক্ষিন জাওরানী গ্রামে বর্তমান চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

ওই মানববন্ধনে বক্তব্য দিতে গিয়ে ভেলাগুড়ি ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম মন্ডল বলেন, ‘নিহত বকছারের ছেলে জহুরুল যে মামলা করেছে তাতে অনেক নির্দোষ মানুষের নাম রয়েছে। আর জহুরুলকে চাপে ফেলে এই নির্দোষ ব্যাক্তিদের নাম জড়িয়েছেন সাবেক চেয়ারম্যান মহিরউদ্দিন”। বর্তমান চেয়ারম্যানের এমন বক্তব্যের পরপরই ওই এলাকায় উত্তেজনা দেখা দেয়।

এক পর্যায়ে মঙ্গলবার সকালে জাওরানী বাজারের দু‘পক্ষেরমধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সংঘর্ষ বাঁধে।এসময় একটি দোকানসহ পাচটি মোটরসাইকেল ভাংচুর করা হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। সংঘর্ষে উভয়পক্ষের ৮ জন আহত হয়।ঘটনার পর থেকে এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি ও উত্তেজনা বিরাজ করছে।

হাতীবান্ধা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. খিতিশ বলেন, ৮জন আহতের মধ্যে চারজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ভেলাগুড়ি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম মন্ডলবলেন, ‘মানববন্ধনে বক্তব্য দেয়ার কারণে মহিরউদ্দিন তার লোকজন নিয়ে এসে আমার অফিসে হামলা চালিয়ে ভাংচুর ওমারধর করে। এতে আমাদের চারজন আহত হয়েছেন।

সাবেক চেয়ারম্যান মহির উদ্দিন বলেন, ‘আমরা কোন হামলা করিনি। উল্টো তারাই হামলা করে আমাকে ও আমার ছেলেকে আহত করেছে। আমরা এখন রংপুর মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধীন আছি”।

হাতীবান্ধা  থানার ওসি শাহা আলম বলেন, ‘ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে  আনেন।এনিয়ে এলাকায় উত্তেজনা রয়েছে  এবং এলাকায় পুলিশ সদস্যরা রয়েছেন। আহতরা চিকিৎসাধীন আছেন। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে”।

সংবাদ টি শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved
Design BY POPULAR HOST BD