Main Menu

প্রিয় মানুষের প্রতি অধিকার

অধিকার হয়তো সবার ক্ষেত্রে দেখানো যায়না। কিন্তু প্রিয়জনের প্রতি অধিকার খাটানো টায় হয়তো ভালবাসা। সেই অধিকার দেখিয়ে যখন অধিকার ক্ষুন্য করে পৃথিবীর সব চেয়ে বড় কষ্টটা হয়তো তখনি বুকের মধ্যে ঝাপটে ধরে। তখনি ওই মুহুর্তে প্রিয়জনের সামনে যেতে খুব লজ্জা হয়।

হয়তো এই লজ্জার কারনেই হাজারো ভালবাসা চিরতরে হারিয়ে যায় পৃথিবীর বুকে। চাপা থাকে না বলা হাজারো কথা। প্রচন্ড অভিমানে কিংবা কোন কারণে প্রিয়জনের
সাথে দু’রাত কমিউনিকেশনলেস থাকার পরই উপলধ্বি হবে,মানুষটা ছাড়া প্রতিটা মূহুত্ব কত অসহায়,নিঃশ্বাস কতটা গাঢ় দীর্ঘশ্বাস হতে পারে, ওকে কতটা ভালোবাসি..”

“অনুপস্থিতিতেই বোঝা যায় ভালবাসার উপস্থিতি”। এ বিশাল যন্ত্রের পৃথিবীতে সবচেয়ে যন্ত্রণাময় কষ্ট হল,প্রিয়জনের প্রতি অধিকার হারিয়ে, শিকারীর তীরে শিকার হওয়া।

পৃথিবীতে ভালোবাসা পরিমাপক একমাত্র যন্ত্র হলো শূন্যতা বোধ। এই শূর্ণতাবোধের যন্ত্রনায় ক্ষমতা হলো এটা ভালোবাসায় বাড়াতেও পারে
কিংবা ভালবাসার সাথে একটা জীবিত মন নিজ হাতে খুন করতে ও পারে। এ খুনের বিচার পৃথিবীর আইনে হয়না, তবে প্রতি ঘোর নিশীতে বিচারহীন জীবন্ত লাশ।

নিজের সাজানো ঘরে চিরকুট পুড়িয়ে ভালোবাসার আগুনে নিজেকে পুড়াতে পুড়াতে বলে, ভুল মানুষকে সত্য ভালোবাসা মহাপাপ। মানুষ পাপ করতে পছন্দ করে। এজন্য সে প্রতিরাতে তার ছবিটা যতœ করে মুছে বুকে আগলে ধরে রাখে , চোখ লাল করে কাঁদে বা তামাকে(নিশাদ্রব্য) পুড়ে
কাশতে কাশতে নিজেকে শেষ করে গেটের সামনেই সারারাত অবশ হয়ে পড়ে থাকে।

দিনের পর দিন, রাতের পর রাত ভালোবাসার স্মৃতিগুলো নিয়ে বেঁচে থাকে, সে পাপ ভারী হয় ফোলা চোখে তবু ভালবাসে। আর হাজারো ভালোবাসার মধ্য সপ্নে তার অধিকারটা দেখাতে থাকে।






News Room - Click for call