Main Menu

ঠাকুরগাঁওয়ে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত

ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের গুলিতে এক বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। এ সময় আরও একজনকে ধরে নিয়ে যায় তারা।

 

সোমবার (২২ এপ্রিল) ভোর সাড়ে ৪টার দিকে হরিপুর সীমান্তের ৩৫৭ মেইন পিলারের কাছে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মো. সুমন (২৫) হরিপুর উপজেলার হরিপুর সীমান্তের ডাঙ্গীপাড়া গ্রামের সফিকুল ইসলামের ছেলে। অন্যদিকে একই গ্রামের এনায়েতুল ইসলামের ছেলে মাসুদ রানাকে (২৮) ধরে নিয়ে গেছে বিএসএফ।

ঠাকুরগাঁও ৫০ বিজিবির অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল এসএনএম। সামিউন্নবী চৌধুরী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ ব্যাপারে বিএসএফের কাছে কড়া প্রতিবাদ জানানো হয়েছে এবং ব্যাটালিয়ন কমান্ডার পর্যায়ে পতাকা বৈঠক আহ্বান করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে এ ব্যাপারে পতাকা বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে বলেও তিনি জানান।

বিজিবি সূত্র জানায়, সোমবার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে হরিপুর সীমান্তের ৩৫৭ মেইন পিলারের কাছে ভারতীয় কাঁটাতারের বেড়া কেটে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশ করলে বসতপুর বিএসএফ ক্যাম্পের জওয়ানরা গুলি চালায়। অন্যরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও অপর বাংলাদেশি মাসুদ মিঞাকে ধরে নিয়ে যায় বিএসএফ। নিহত সুমন ভ্যান চালক তবে দিনে ভ্যান চালালেও টাকার লোভে সে চোরাচালানে যুক্ত হয়ে থাকতে পারে বলে ধারণা করছে বিজিবি। আটক মাসুদ রানা একই গ্রামের এনায়েতুল ইসলামের ছেলে বলে নিশ্চিত করেছে সীমান্তবাসী ও বিজিবি সূত্র।

ঠাকুরগাঁও ৫০ বিজিবির অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল এসএনএম সামিউন্নবী চৌধুরী জানান, এ ব্যাপারে বিএসএফের কাছে তীব্র প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। তিনি বলেন, নিহতের লাশ ফেরত, ধৃত বাংলাদেশিকে ফেরত আনাসহ কেনো এ ধরনের হত্যাকাণ্ড ঘটানো হলো সে ব্যাপারে আলোচনার জন্য কমান্ডার পর্যায়ে পতাকা বৈঠক করা হয়ে। ভারতের ১৪৬ উত্তর দিনাজপুর বিএসএফের ব্যাটালিয়নের কমান্ডার কমান্ডেন্ট হিন্দালালের সাথে পতাকা বৈঠকে যোগ দিতে তিনি সীমান্তের পথে রয়েছেন।

সূত্র: দৈনিক অধিকার






News Room - Click for call