Main Menu

ঢাবির বিজয় একাত্তর হলে ছাত্রলীগ কর্মীকে মারধর

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) বিজয় একাত্তর হল সংসদের জিএস নাজমুল হাসান নিশানের উপস্থিতিতে ছাত্রলীগ কর্মী জুবায়ের হোসেন বিদ্যাকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। রবিবার (২১ এপ্রিল) দিবাগত রাত সাড়ে বারোটার দিকে বিজয় একাত্তর হলের মিনি গেস্টরুমে এই ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত ওই শিক্ষার্থী হলের উপ-সম্পাদক তোফায়েল বলে জানা গেছে।

সূত্র জানায়, জুবায়ের হোসেন বিদ্যা প্রথম বর্ষের একজন শিক্ষার্থী। তার বাড়ি ঝিনাইদহ। অন্যদিকে, হলের জিএস নাজমুল হাসান নিশানের বাড়িও একই জেলায়। জুবারের হলে খুলনা গ্রুপে রাজনীতি করে। একই গ্রুপে একাধিক নেতা থাকার কারণে জুবায়ের হোসেন বিদ্যা রাজিবের অনুসারী ছিল। জুবায়ের হোসেন বিদ্যা কেন রাজিবের অনুসারী, সে কেন তার অনুসারী নয় এই জের ধরে তার উপস্থিতিতে জিএসের কর্মীরা জুবায়ের হোসেন বিদ্যার গায়ে হাত তুলেন বলে জানান ভুক্তভোগী।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে জুবায়ের বলেন, হলে থাকতে হলে হলের ইমিডেইট সিনিয়রদের অনুসরণ করার একটা রেওয়াজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আছে। আজকে হলের জিএস শবে বরাত উপলক্ষে রাতের খাবারের ব্যবস্থা করেছিল। খাবার খাওয়া শেষে আমি বাইরে গেলে হলের খুলনা বিভাগের কিছু তৃতীয় বর্ষের ভাই আমাকে ডাকেন। আমি বলেছি, ভাই আমাদের ইমিডেইট সিনিয়ররা অনুমতি না দিলে আমরা কী করে যাই। তখন কিছু ভাই আমাদের ঘাড় ধাক্কা দিয়ে মিনি গেস্টরুমে নিয়ে যায়। এখানে নিয়ে হলের জিএস নাজমুল হাসান নিশানের উপস্থিতিতে চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী তোফায়েল আমার গায়ে হাত তুলে।

কিন্তু বিষয়টি অস্বীকার করে নাজমুল হাসান নিশান বলেন, আসলে সিনিয়র কেউ জুনিয়রের গায়ে হাত তুলেননি। তবে, জুনিয়র সিনিয়রদের গায়ে হাত তুলেছেন। হলের তিনজন জুনিয়র রাব্বি, শাহরিয়ারসহ শাওন নামে আরও একজন সিনিয়রের গায়ে হাত তুলেছেন। বিষয়টা ঘটার সময়ে আমি ছিলাম না। আমার অনুপস্থিতিতে বিষয়টি ঘটেছে।

এ প্রসঙ্গে ডাকসুর এজিএস সাদ্দাম হোসেন বলেন, এটা যদি ঘটে থাকে তাহলে খুবই দুঃখজনক। এর বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ও প্রশাসনিকভাবে যা ব্যবস্থা নিতে হয় আমরা নেব।






News Room - Click for call