Main Menu

লাশের মূল্য ২ লাখ টাকা  লোহাগড়ায় ক্লিনিক মালিককে জরিমানা

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার লক্ষীপাশায় মা ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতি মায়ের মৃত্যুর ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।
দুই লক্ষ টাকায় মৃত্যুর ঘটনাটি আপোষ মিমাংশা হয়েছে বলে গুঞ্জন উঠেছে। শনিবার সকাল ৮টায় ময়না তদন্ত ছাড়াই লাশের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। এ ঘটনায় শনিবার (৬জুলাই) সকাল ১১টায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুকুল কুমার মৈত্র ওই ক্লিনিক পরিদর্শন করেন।  জানা যায়, উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মুকুল কুমার মৈত্র শনিবার সকালে বিতর্কিত ক্লিনিকের মালিক শেখ জাহাঙ্গীর আলমকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এছাড়া ক্লিনিকের ওটি রুমের সব মালামাল জব্দসহ (ওটি রুম) সিলগালা করে দেন। দু’দিন পর স্থায়ী ভাবে ওই ক্লিনিক বন্ধ করে দেয়া হবে বলে তিনি ঘোষনা দেন। ভুল চিকিৎসায় কামাল শেখের স্ত্রী বিলকিস বেগমের মৃত্যুর ঘটনাটি দুইলক্ষ টাকায় উভয় পক্ষের মধ্যে আপোষ মিমাংশা হয়েছে। এ কারণে জনমনে ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ দেখা গেছে। এ ব্যাপারে লোহাগড়া থানার ওসি মোকাররম হোসেন জানান,‘কোন অভিযোগকারী না থাকায় ময়না তদন্ত ছাড়াই লাশ দিয়ে দেয়া হয়েছে।’প্রসঙ্গত,প্রসব বেদনা নিয়ে শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলার কোটাকোল ইউপির করগাতী গ্রামের কাঠ ব্যবসায়ী কামাল শেখের স্ত্রী বিলকিস বেগমকে মা ক্লিনিকে নিয়ে যাওয়া হয়। ক্লিনিকের চিকিৎসক তাজরুল ইসলাম তাজ প্রসব বেদনার জন্য বিলকিসকে একটি ইনজেকশন দেন। ইনজেকশন দেয়ার পর তিনি মারাত্মক অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে তাকে অ্যাম্বুলেন্সে নড়াইল সদর হাসপাতালে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। স্বজনদের অভিযোগ,ভুল চিকিৎসায় তার মৃত্যু হয়েছে।





News Room - Click for call