Main Menu

সন্ধ্যায় নিখোঁজ, রাতে মিলল শিশুর রক্তাক্ত মরদেহ

রাজধানীর ওয়ারীর বনগ্রামে শুক্রবার নিখোঁজের দু’ঘণ্টা পর একটি খালি ফ্ল্যাট থেকে সামিয়া আফরিন সায়মা নামে ৮ বছরের এক শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শিশুটিকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করছে পুলিশ।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, পুরান ঢাকার নবাবপুরের ব্যবসায়ী আবদুস সালাম ওয়ারী থানার ১৩৯ বনগ্রামের বাড়ির ৬ তলায় নিজের ফ্ল্যাটে পরিবার নিয়ে থাকেন।

শুক্রবার মাগরিবের নামাজের সময় সামিয়া বাসা থেকে নিখোঁজ হয়। অনেক খোঁজাখুঁজির পর রাত সাড়ে ৮টায় একই বাড়ির ৮ তলার একটি খালি ফ্ল্যাটে সামিয়ার লাশ পাওয়া যায়।

ওয়ারী থানার এসআই হারুনুর রশিদ জানান, শিশু সামিয়ার গলায় দাগ রয়েছে। এছাড়া ঠোঁটে ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে রক্তাক্ত চিহ্ন পাওয়া গেছে।

তাকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তিনি রাত পৌনে ১২টায় বলেন, সিআইডির ক্রাইমসিন ঘটনাস্থলে আছে।

ক্রাইমসিন যাওয়ার পর শিশুটির লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করা হবে। তখন বিষয়টি আরও স্পষ্ট হওয়া যাবে। তাছাড়া ময়নাতদন্তে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ বেরিয়ে আসবে।

ওয়ারী থানার ওসি আজিজুর রহমান বলেন, ওই ভবনের অষ্টম তলার নির্মাণ কাজ পুরো শেষ হয়নি। সেখানে একটি খালি কক্ষ থেকে মেয়েটির লাশ উদ্ধার করা হয়। মেয়েটিকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নিহত সামিয়ার বাবা আবদুস সালাম বলেন, মাগরিবের আজানের সময় আমি নামাজ পড়তে মসজিদে যাই। মসজিদ থেকে ফেরার সময় সন্ধ্যার নাশতা কিনে বাসায় আসি। বাসায় এসে দেখি সামিয়া নেই।

আমি ও আমার স্ত্রী তাকে খুঁজতে শুরু করি। পরে ৮ তলার রান্না ঘরে তার লাশ পাওয়া যায়। সামিয়া আফরিন সায়মা সিলভারডেল স্কুলের ছাত্রী ছিল।






News Room - Click for call