Main Menu

দাবি মানার নোটিশ পেয়ে ক্লাসে ফিরল বুয়েট শিক্ষার্থী

দাবি মানার নোটিশ পেয়ে ক্লাসে ফিরল বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। শুক্রবার (২১ জুন) দিবাগত রাত ১টার দিকে দাবি মানার বিস্তারিত বর্ণনা দিয়ে নোটিশ দেয় বিশ্ববিদ্যলয় কতৃপক্ষ।

এ নোটিশ পাওয়ার পর শিক্ষার্থীরা তাদের আন্দোলন তুলে নিয়ে ক্লাসে ফিরেছে।

জানা যায়, গেল বৃহস্পতিবার (২০ জুন) আন্দোলনের ৬ষ্ঠ দিনে বুয়েট শিক্ষার্থীদের দাবি-দাওয়া শুনতে স্বপ্রণোদিত হয়ে বিকাল ৩টায় বুয়েট ক্যাম্পাস উপস্থিত হন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। ওইদিন টানা চার ঘণ্টা আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধিদলের সঙ্গে আলোচনা করেন তিনি। আলোচনায় তিনি শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো বিস্তারিত শুনেন। পরে তিনি যেসব দাবি মন্ত্রণালয়ের পূরণের মতো তা পূরণের আশ্বাস দেন এবং বাকি দাবিগুলো পূরণের জন্যে বিশ্ববিদ্যলয়ের কতৃপক্ষককে নির্দেশ দেন। আলোচনা সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শুক্রবার দিবাগত রাত ১টার দিকে দাবি মানার বিস্তারিত বর্ণনা দিয়ে নোটিশ দেয় বিশ্ববিদ্যলয় কতৃপক্ষ। এ নোটিশ পাওয়ার পর আন্দোলন তুলে নিয়ে ক্লাসে ফিরেছেন শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীদের ১৬ দফা দাবিগুলো হলো- বুয়েট গেটের জন্য সিভিল-আর্কিটেকচার ডিপার্টমেন্টের বিশেষজ্ঞদের নিয়ে কমিটি গঠন করতে হবে ও ডিজাইনের জন্য শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রতিযোগিতা আয়োজন করার অফিসিয়াল নোটিশ দিতে হবে, বিতর্কিত নতুন ডিএসডাব্লিউকে (ছাত্রকল্যাণ পরিচালক) অপসারণ করে ছাত্রবান্ধব ডিএসডাব্লিউ নিয়োগ দিতে হবে, ছাত্রী হলের নাম ‘সাবেকুন নাহার সনি হল’ হিসেবে নামকরণ করতে হবে, ১০৮ ক্রেডিট অর্জনের পর ডাবল সাপ্লি দেওয়ার যে পদ্ধতি গত টার্মে চালু হয়েছিল সেটা পুনর্বহাল রাখতে হবে, আবাসিক হলগুলোর অবকাঠামোগত যেসব কাজ উপাচার্যে অফিসে আটকে আছে সেটা ক্লিয়ার করতে হবে, সিয়াম-সাইফ সুইমিংপুল কমপ্লেক্স স্থাপনের জন্য উপাচার্যের সিগনেচারে নোটিশ দিতে হবে, নির্মাণাধীন টিএসসি ভবন ও নেম ভবনের কাজ শুরু করতে হবে, নিয়মিত শিক্ষক মূল্যায়ন প্রোগ্রাম চালু করতে হবে, বুয়েটের যাবতীয় লেনদেনের ডিজিটালাইজেশান প্রক্রিয়ার অফিশিয়াল উদ্যোগ নিতে হবে, নির্বিচারে ক্যাম্পাসের গাছ কাটা বন্ধ করতে হবে, কেন গাছ কাটা হয়েছে সেটার ব্যাখ্যা দিতে হবে, যতগুলো গাছ কাটা হয়েছে তার দ্বিগুণ গাছ উপাচার্যকে উপস্থিত থেকে লাগাতে হবে, গবেষণায় বরাদ্দ বাড়াতে হবে, প্রাতিষ্ঠানিক মেইল আইডি দিতে হবে, বুয়েট ওয়াইফাই আধুনিকায়ন করতে হবে, ব্যায়ামাগার আধুনিকায়ন করতে হবে, বুয়েট মাঠের উন্নয়ন করতে হবে এবং পরীক্ষার খাতায় রোলের পরিবর্তে কোড সিস্টেম চালু করতে হবে।

প্রসঙ্গত, গেল শনিবার (১৫ জুন) থেকে উল্লিখিত ১৬ দফা দাবিতে আন্দোলন শুরু করে বুয়েট শিক্ষার্থীরা। দাবি আদায়ে তিন দিনের আলটিমেটামের পরে একপর্যায়ে উপাচার্য ভবন ও অ্যাকাডেমিক ভবনের গেইটে তালা ঝুলিয়েছিল তারা। আন্দোলনের ৪র্থ দিনে তারা পলাশি-বকশিবাজার সড়কটি অবরোধ করে।






News Room - Click for call