Main Menu

খুলনার বিএনএসবি চক্ষুহাসপাতালের এ্যাডমিনিষ্ট্রেটর তারিফের বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

খুলনার বিএনএসবি চক্ষুহাসপাতালের এ্যাডমিনিষ্ট্রেটর মাহমুদুল হাসান তারিফের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহনের দাবীতে বুধবার সকাল ১০টায় হাসপাতালের সামনে এলাকাবাসী মানববন্ধন করেছে।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, গত ১০জুন ফেন্সিডিল সহ প্রতিষ্ঠানের এ্যাডমিনিষ্ট্রেটর মাহমুদুল হাসান তারিফ অভয় নগর থানা পুলিশের হাতে আটক হলে প্রতিষ্ঠানের ডাক্তার, কর্মকর্তা,কর্মচারী ও এলাকাবাসী তার বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যাবস্থা গ্রহনের দাবী জানালেও কর্তৃপক্ষ তার বিরুদ্ধে এখনও পর্যন্ত কোন ব্যাবস্থা না নেয়ায় উদ্দ্যেগ প্রকাশ করেন।

মানববন্ধনে বক্তারা আগামী ৪৮ঘন্টার মধ্যে এ্যাডমিনিষ্ট্রেটর মাহমুদুল হাসান তারিফের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যাবস্থা গ্রহনের দাবী জানান।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, খানজাহান আলী থানা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা স.ম রেজওয়ান আলী, জাতীয় শ্রমিক লীগ খুলনা উত্তর সভাপতি আলহাজ্ব শেখ আনসার আলী, খুলনা মহানগর সড়ক পরিবহন শ্রমিকলীগের সভাপতি শেখ মনিরুল ইসলাম, যোগীপোল ইউপি সদস্য শাহ মোঃ নূরুল ইসলাম, মোড়ল মুজিবর রহমান, আব্দুল হক নাহিদ, আহসান হাবিব দুলু, ফারুক হোসেন সদ্দার, মোঃ ইব্রাহীম, বেলায়েত খান, সেকেন্দার আলী, আল আমিন ফকির প্রমুখ।

এদিকে এ্যাডমিনিষ্ট্রেটর মাহমুদুল হাসান তারিফের পরিবারের দাবী, কিছুদিন আগে ডাক্তার সাইফুর রহমান সাড়ে ৫লক্ষ টাকা ব্যয়ে হাসপাতালের একটি মেশিন কেনেন এবং সেখান থেকে কমিশনও পান। বিষয়টি তারিফ জেনে ফেলে, যে কারনে ষড়যন্ত্র মুলক ভাবে তারিফকে ফাসানো হচ্ছে।

এছাড়াও চক্ষু হাসপাতালের কাউন্সিলর উক্ত হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা নিতে আসা রুগীদেরকে ডাক্তার সাইফুলের ময়লাপোতা আই প্যাভিলিয়ন নিজস্ব চেম্বারে কৌশলে নিয়ে যেত। বিষয়টি ভালভাবে দেখতেন না এ্যাডমিনিষ্ট্রেটর মাহমুদুল হাসান তারিফ।






News Room - Click for call