Main Menu

মুকসুদপুরের মানবিক ইউএনও মোসা তাসলিমা আলী

রাজধানী থেকে বহুদূরে মধুমতি নদীর তীর ঘেরা গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোসা তাসলিমা আলী গোটা এলাকায় বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের কাছে এখন অনুকরণীয় মানবিক কর্মকর্তা।

এখানে যোগদানের পর থেকেই তিনি সাধারণ মানুষের সেবায় কাজ করে চলেছেন। জনমানুষের স্বার্থে লড়ে যাচ্ছেন যাবতীয় অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে।

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস সারা বিশ্বের ন্যায় বাংলাদেশেও ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। মানুষের অপমৃত্যু ঘটছে মরণঘাতী মহামারি এই ভাইরাসের ছোবলে।

করোনা ভাইরাসে জন জীবন আজ অসহায় ও বিপর্যন্ত। করোনাভাইরাসের এই মহামারিতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মাঠপর্যায়ে কর্মহীন, অসহায়-হতদরিদ্র মানুষের পাশে থেকে তিনি দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।

সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতের লক্ষে উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রাম গুলোতে লোকজনদের সচেতন করার জন্য বুঝিয়ে চলছেন।

আবার করোনা আক্রান্ত লকডাউন এলাকাগুলোতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে খাদ্যসামগ্রী নিয়ে নিজেই বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিয়েছেন। প্রায় প্রতিদিনই উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা খাদ্যসামগ্রী সঠিকভাবে বিতরণের জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে নিয়ে দুঃস্থ অসহায় কর্মহীনদের হাতে তুলে দিচ্ছেন।

কোভিড-১৯ মোকাবেলার পাশাপাশি ঘূর্ণিঝড় আম্পানেও নিরলস ভাবে দায়িত্ব পালন করছেন। সেই সঙ্গে ঘূর্ণিঝড়ে কবলিত মানুষদের বিভিন্ন সাহায্য সহযোগিতা করেছেন।

বর্তমানে বন্যা পরিস্থিতিতে উপজেলার বন্যাকবিলত স্থানে সরজমিনে নিজে গিয়ে তাদের সাহায্য সহযোগিতা করেছেন এবং স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার পরামর্শ দিচ্ছেন। দিনরাত সশরীরে উপস্থিত হয়ে এবং মোবাইল এর মাধ্যমে খোঁজখবর নিয়ে আসছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মুকসুদপুর ইউএনও হিসেবে গত ১৪ জানুয়ারী ২০১৮ ইং তারিখে যোগদান করেন মোসা তাসলিমা আলী । আর দায়িত্ব নিয়েই তিনি উপজেলার মানুষের প্রতি ভালোবাসার হাত বাড়িয়ে দেন। বাল্যবিয়ে ও যৌতুকপ্রথা বন্ধ,অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ,সরকারি জমি উদ্ধার,চাঁদাবাজি বন্ধ এবং মাদক নির্মূলে একের পর এক অভিযান চালাচ্ছেন। আর জনহিতকর এসব কর্মকাণ্ড চালিয়ে তিনি এলাকার মানুষের অতি কাছের মানুষ হয়ে উঠেছেন।
স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে জানা যায় মানবিক এই ইউএনও উপজেলা জুড়ে নানা সেবাধর্মী উদ্যোগ নিয়েছেন।

করোনা কালীন সময়েও ছুটে বেড়াচ্ছেন রাস্তা-ঘাট ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানের অনিয়ম ধরতে। কি গরম আর কি বর্ষা। মাঠ-ঘাট সব এক করে ফেলেছে তার কর্মজজ্ঞ দিয়ে। করোনা কালীন সময়ে সরকারের পাশাপাশি নিজ অর্থায়নে ত্রান ও আর্থিক সহায়তা নিয়ে দাড়িয়েছেন অসহায় ও সুবিধাবঞ্চিত মানুষদের পাশে।

সূত্র আরও জানায়, ইউএনও মোসা তাসলিমা আলী চলমান করোনা দুর্যোগ মোকাবেলায় নানা উদ্যোগ নিয়ে চলেছেন। করোনা আক্রান্তদের দিন-রাত খোঁজ খবর নিচ্ছেন। তাদের সুস্থতার জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করছেন। উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে এরই মধ্যে লক্ষাধিক মানুষের হাতে খাদ্যসামগ্রী তুলে দেওয়া হয়েছে। তা এখনো চলছে। করোনা ভাইরাস ছাড়াও বন্যার্তদের মাঝেও সরকারি, বেসরকারি এবং ব্যক্তিগত তহবিল থেকে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করছে।

জানা গেছে, ইউএনও মোসা তাসলিমা আলী উপজেলায় বিভিন্ন অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধেও রুখে দাঁড়িয়েছেন। উপজেলার সর্বসাধারনের কাছে মানবিক কর্মকর্তা আর অন্যায় কারীদের জন্য তাদের যোম।

ইউএনও মোসা তাসলিমা আলী বলেন, মানবসেবার ব্রত নিয়েই চাকুরিতে এসেছি। আমি এ উপজেলা বাসীর জন্য যেটা করছি তাহা আমার দায়িত্ব ও কর্তব্য বোধ থেকেই করছি। যতদিন চাকরি করবো ততদিন মানুষের সেবা করার চেষ্টা করবো এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বাস্তবায়নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহযোদ্ধা হিসেবে আমি মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। প্রধানমন্ত্রীর প্রতিটি উদ্যোগ সফল করতে আমি অবিরাম চেষ্টা চালিয়ে যাব। এতে যত বাধাই আসুক পিছপা হবো না।

তিনি আরো জানান, করোনাভাইরাসের প্রার্দুভাবের শুরু থেকে ভাইরাস সংক্রমণ রোধে রাত-দিন মাঠে কাজ করতে হচ্ছে। বিশেষ করে গত ৫ মাস ধরে উপজেলার অসহায় দুঃস্থ কর্মহীন লোক,জনদের মাঝে খাদ্য সহায়তা, সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করণ এবং বিভিন্ন কারণে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা চলমান রয়েছে।






News Room - Click for call