Main Menu

করোনা মোকাবিলায় মুকসুদপুর উপজেলা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা সাইফুল ইসলামের প্রসংশনীয় ভূমিকা

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস সারা বিশ্বের ন্যায় বাংলাদেশেও ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। মানুষের অপমৃত্যু ঘটছে মরণঘাতী মহামারি এই ভাইরাসের ছোবলে।

করোনা ভাইরাসে জন জীবন আজ অসহায় ও বিপর্যন্ত। এ লক্ষে সরকারের বিরাট অংশের অংশীদার হিসেবে যথাযথ নির্দেশনা মোতাবেক গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলা আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর কর্মকতা মোঃ সাইফুল ইসলাম ব্যাপক ভূমিকা পালন করছেন।

সাইফুল ইসলামের তৎপরতায় উপজেলা আনসার ভিডিপির কর্মকর্তা ও কর্মচারী,আনসার সদস্যরা করোনা মোকাবিলায় প্রশংসনীয়-সাহসী ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন। এ বাহিনী’র সদস্যরা মুকসুদপুর উপজেলায় জনসচেতনতা, সেবা ও নিরাপত্তামূলক কাজের শুরু থেকেই মুকসুদপুরে সম্মুখযোদ্ধার দায়িত্ব পালন করছেন।

লক-ডাউন, হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিতকরণ, স্বাস্থ্য সচেতনতা, আইনশৃঙ্খলা রক্ষা, ত্রাণসামগ্রী বিতরণ, গুরুত্বপূর্ণ সরকারি স্থাপনা ও বেসরকারি শিল্পকারখানার নিরাপত্তা প্রদানে আনসার বাহিনীর সদস্যরা স্থানীয় প্রশাসনের সাথে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। নিজ নিজ দায়িত্বের পাশাপাশি স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে দিন-রাত উপজেলার এক প্রান্ত থেকে অন্য পান্তে কাজ করে যাচ্ছে বাহিনীর সদস্যরা। মৃত্যুর ভয় দূর করে করোনা ভাইরাসের শুরু থেকেই সেবা দিয়ে যাচ্ছেন তারা।

সরকারি অর্থায়নের পাশাপাশি নিজ অর্থায়নেও স্বাস্থ্য সামগ্রী ও মানুষকে অার্থিক ভাবে সহযোগিতা করছেন উপজেলা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা মোঃ সাইফুল ইসলাম।

কোভিড-১৯ মোকাবেলার পাশাপাশি ঘূর্ণিঝড় আম্পানেও নিরলস ভাবে দায়িত্ব পালন করছেন। সেই সঙ্গে ঘূর্ণিঝড়ে কবলিত মানুষদের বিভিন্ন সাহায্য সহযোগিতা করেছেন।

“মুজিব বর্ষের আহ্বান লাগাই গাছ বাড়াই বন”
জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষ্যে গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার উপজেলা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তার কার্যালয় কর্তৃক উপজেলার ১৬ ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি- ২০২০ বাস্তবায়িত হয়।

এছাড়াও উপজেলা আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর অফিস সূত্রে জানা যায়, করোনা ভাইরাস সংক্রমণরোধে উপজেলা কর্মকর্তা মোঃ সাইফুল ইসলামের নিজ উদ্যোগে ২১০জন সেচ্ছাসেবী আনসার নিয়োগ দিয়েছেন। উপজেলাবাসীর সেবা করা জন্য এ নিয়োগ দিয়েছেন।

বর্তমানে বন্যা পরিস্থিতিতে উপজেলার বন্যাকবিলত স্থানে সরজমিনে নিজে গিয়ে তাদের সাহায্য সহযোগিতা করেছেন এবং স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলার পরামর্শ দিচ্ছেন।

মুকসুদপুর উপজেলার কাশালিয়া ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবী দলনেতা সুমন মৃধা এবং জলিরপাড় ইউনিয়নের স্বেচ্ছাসেবী দলনেতা নিত্যনন্দ বৈরাগী এবং ইতি বৈরাগী জানান, করোনাকে ঠেকাতে জনসমাগম এড়ানো এবং সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখতে দায়িত্ব পালন করছি। করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রতিরোধে এবং প্রাদুর্ভাবজনিত পরিস্থিতি মোকাবিলায় আমার সেচ্ছাসেবী সদস্যরা সদা প্রস্তুত রয়েছি। আমাদের উপজেলার আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম একজন মানবিক অফিসার। তিনি আমাদের স্কুল থেকে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন সহযোগিতা করেছেন এবং প্রতিটি ইউনিয়নের স্বেচ্ছাসেবী আনসার ও ভিডিপি সদস্যদের দিনরাত সশরীরে উপস্থিত হয়ে এবং মোবাইল এর মাধ্যমে খোঁজখবর নিয়ে আসছেন।

মুকসুদপুর উপজেলার আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর কর্মকর্তা মোঃ সাইফুল ইসলাম জানান, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে তাঁর দেওয়া নির্দেশ মোতাবেক কাজ করে যাচ্ছি। তারই লক্ষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মহোদয়ের নির্দেশে এবং রাষ্টীয় প্রয়োজনে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জনসচেতনতা ও সমাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে ১৬টি ইউনিয়ন ও পৌরসভায় বাহিনীর ইউনিয়ন দলপতি-দলনেত্রী/ইউনিয়ন আনসার প্লাটুন কমান্ডারদের নেতৃত্বে ২১০ জন আনসার ও ভিডিপি সদস্য বিভিন্ন হাট বাজার ও রাস্তা ঘাটে স্বচ্ছায় সক্রিয়ভাবে কাজ করে হচ্ছে।

উপজেলার সরকারি ও বেসরকারি সংস্থায় সার্বক্ষণিক নিরাপত্তা ও সেবা প্রদানের জন্য এ উপজেলার সকল আনসার ও ভিডিপি সদস্যরা দিন-রাত ২৪ঘন্টা নিয়োজিত রয়েছে। করোনা ঝুঁকি নিয়ে স্বাস্থ্য বিধি মেনে মাস্ক,হ্যান্ড গ্লাভস পরে তারা সেবা দিয়ে যাচ্ছে। উপজেলার কোন আনসার কর্মকর্তা-কর্মচারী ছুটিতে নেই।

এ উপজেলায় প্লাটুন ভুক্ত ভিডিপি সদস্য আছে প্রায় ১৭০০০ প্লাস। এরাও স্বেচ্ছায় নিজ অবস্থানে নিজে সচেতন থেকে অন্যকে সচেতন করে যাচ্ছে।

তিনি আরো জানান, উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে স্বেচ্ছাসেবী ভিডিপি সদস্যারা স্থানীয় প্রশাসনকে করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাব মোকাবেলায় সাহায্য করছে। গ্রামের রাস্তায় চেকপোস্ট তৈরী করে গ্রামের লোকজনদের ঘর থেকে অকারণে বের না হওয়ার পরামর্শ প্রদানসহ করোনাভাইরাস প্রতিরোধে গণ-সচেতনা চালিয়ে যাচ্ছে।

এবিষয়ে মুকসুদপুর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মোসাঃ তাছলিমা আলী বলেন, আমাদের উপজেলা আনসার ও ভিডিপি সদস্যরা নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। যা সত্যিই প্রশংসার অংশীদার।






News Room - Click for call