Main Menu

ফেসবুকের মাধ্যমে অর্থ সংগ্রহ করে সাংবাদিক আয়শা আকাশী মাদারীপুরে বিধবাকে ঘর তুলে দিচ্ছেন

শুভ সংঘ মাদারীপুর জেলা শাখার আয়োজনে সাংবাদিক আয়শা সিদ্দিকা আকাশীর উদ্যোগে একজন বিধবাকে ঘর তুলে দেয়া হচ্ছে। শনিবার এই কাজের উদ্বোধন করেন মাদারীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সাইফুদ্দিন গিয়াস। এই সময় তিনি বিধবা শহর ভানুর ঘরের মেঝে পাকা করার জন্য আর্থিক সহযোগিতা করবেন বলে জানান। শুভসংঘের কেন্দ্রীয় কমিটির সিনিয়র সহ সভাপতি সাংবাদিক আয়শা সিদ্দিকা আকাশী ফেসবুকের মাধ্যমে ৭৭ হাজার ৫শত টাকা ও ঘর তৈরির জন্য কিছু টিন, কাঠ, খুটিসহ কিছু মালামাল সংগ্রহ করেন।

নকশি কাথা, দুরন্ত মাদারীপুর, স্বপ্নের সবুজ বাংলাদেশ, বিডি ক্লিনের সদস্যরা স্বেচ্চায় ঘর তৈরির কাজে সহযোগিতা করছেন।

মানুষ মানুষের জন্য, শহর ভানু’র ঘর : এই জীর্ণঘরটুকুই যেন ভেঙ্গে না পড়ে, প্রতিদিন চলে সেই যুদ্ধ এই শিরোনামে ফেসবুকে স্ট্যাস্টাস দেন সাংবাদিক আয়শা সিদ্দিকা আকাশী। তা দেখে শুভসংঘের উপদেষ্টা ইতালী প্রবাসী ওয়াদুদ মিয়া ওরফে জনি মিয়া, ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহযোগী অধ্যাপক ও ইউরোলোজী বিভাগের ডাক্তার অহিদুজ্জামান খান বাবর, নাম না প্রকাশে ইতালী ও লন্ডন প্রবাসী দুই জন, শুভসংঘের উপদেষ্টা ফ্রেন্ডস অভ নেচারের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক রাজন মাহমুদ, বাংলাদেশ কেমিস্টস এন্ড ড্রাগিস্টস সমিতি মাদারীপুর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক সাকিব হাসান, সমাজসেবক রেজাউল হক টিপু, প্রবাসী আনোয়ার হোসেন, সমাজসেবক নিশাদ ভুইয়া, শুভসংঘের উপদেষ্টা মৈত্রি মিডিয়া সেন্টারের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক এস এম আরাফাত হাসান, প্রবাসী জিএম পলাশ, দুরন্ত মাদারীপুরের নাঈম হোসেন সেলিম, চাকুরীজীবী শওকত হোসেন, সমাজসেবক জেসমিন আক্তার, পরিবেশবাদী সংগঠন গ্রীণ হোপ’ এর পক্ষ থেকে ফয়সাল রুমি, স্বপ্নের সবুজ বাংলাদেশের সভাপতি মোঃ সোহেল মাতুব্বর, শুভসংঘের সদস্য মোঃ কাজল, মাদারীপুর সদর উপজেলা যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের জাকির হোসেনের সহযোগিতায় নগদ ৭৭ হাজার ৫শত টাকা, কিছু টিন, কাঠ, খুটি এবং মাদারীপুর সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সাইফুদ্দিন গিয়াসের মাধ্যমে মেঝে পাকা করার সহযোগিতার মাধ্যমে শহর ভানুর এই ঘর নির্মাণ করা হচ্ছে।

মাদারীপুর শহরের ২নং শকুনি এলাকার আলতাব ঢালীর স্ত্রী শহর ভানু প্রায় ত্রিশ বছর আগে বিধবা হন। প্রতিবন্ধী মেয়ে মুক্তাকে নিয়ে শুরু হয় তার জীবন সংগ্রাম। মানুষের বাড়ি গৃহকর্মীর কাজ করে কোন রকমভাবে খেয়ে পড়ে একটি খুপড়ি ঘরের মধ্যে মানববেতর জীবন যাপন করতেন।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে আরো ছিলেন, সাংবাদিক আয়শা সিদ্দিকা আকাশী, শুভসংঘের উপদেষ্টা এসএম আরাফাত হাসান, সৌদি আরব প্রবাসী মিজানুর রহমান, স্থানীয় ইউসুফ বেপারী, শিক্ষক মো. ইউসুফ, জাকির হোসেন, শুভসংঘের রাকিব হাসান বকুল, মিলন মুন্সি, জুবায়ের জাহিদ, মোঃ কাজল, ইমরান মুন্সি, মো. জালাল মাতুব্বার, সিফাতুল ইসলাম, সঞ্জীব তালুকদার, সম্রাট তালুকদার, আলামিন খান, সজিব খান, ফয়সাল আহমেদ, আসলাম হোসেন, মোঃ রাহাত তালুকদার সোহান, আরিয়ান আহমেদ, নাইম ইসলাম, সিয়াম, ইমরান হোসেন মোল্যা, রাশেদুল ইসলাম, জান্নাতুল ফেরদৌস, নাদিজা আক্তার, নাফিজা আক্তার, সিয়াম, রাতুল, নাহিদ, তামান্না, জান্নাতুল ফেরদৌস, অমিত, আবির, কাওসার হাসান প্রমুখ।

ঘর পেয়ে কান্নাজড়িত কণ্ঠে শহর ভানু বলেন, আমার স্বামী অনেক আগে মারা গেছেন। মেয়ে প্রতিবন্ধী। আমার সাধ্য ছিলো না একটি ঘর তৈরি করার। কোন রকমভাবে এই খুপড়ি ঘরের মধ্যেই থাকতাম। একটু বৃষ্টি হলেই পানি পড়তো। আজ এই ঘর পেয়ে আমি কতটা খুশি হয়েছি, তা ভাষায় প্রকাশ করতে পারবো না।

সাংবাদিক আয়শা সিদ্দিকা আকাশী বলেন, শুধুমাত্র সংবাদ লেখাই আমাদের কাজ না। আমরা মানুষের পাশে দাড়াবো। তাদের জন্য আমরা কাজ করবো। তাই মানুষ মানুষের জন্য এই চিন্তা থেকেই শহর ভানুর জন্য ফেসবুকের মাধ্যমে টাকা সংগ্রহ করি। কিছু মানবিক মানুষের সহযোগিতায় এই ঘর নির্মাণ করা সম্ভব হচ্ছে। প্রতিটি মানুষের যার যার সাধ্যমত অসহায় মানুষদের পাশে দাড়ানো উচিত বলে আমি মনে করি।






News Room - Click for call