Main Menu

র‌্যাব হেফাজতে নেয়া হচ্ছে শাহেদকে

রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান শাহেদ করিমের বিরুদ্ধে করা রিজেন্ট হাসপাতালে করোনা পরীক্ষা জালিয়াতির মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব পেয়েছে র‍্যাব।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের পরই ইতিমধ্যে মামলাটি ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) থেকে র‍্যাবে হস্তান্তর করা হয়েছে। তবে শাহেদের গাড়ি থেকে উদ্ধার হওয়া অস্ত্র ও মাদকের মামলাটি ডিবি তদন্ত করবে।

বুধবার (২২ জুলাই) ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপি’র অতিরিক্ত কমিশনার আব্দুল বাতেন বলেন, রিজেন্ট হাসপাতালে করোনা পরীক্ষা জালিয়াতির মামলার তদন্তভার র‌্যাবের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের পর মামলাটি হস্তান্তর করা হয়। তবে রিজেন্টের চেয়ারম্যান শাহেদকে নিয়ে অভিযানে উদ্ধার অস্ত্র ও মাদকের মামলা ডিবিই তদন্ত করবে।
উদ্ধার করা অস্ত্রটি কোথাও ব্যবহারের তথ্য পাওয়া যায়নি। আমরা তদন্ত করছি। মাঝেমাঝে অপরাধীরা বৈধ অস্ত্রের পাশাপাশি অপরাধ আড়াল করতে অবৈধ অস্ত্র ব্যবহার করে থাকে।
তিনি আরো বলেন, রিজেন্ট হাসপাতালের প্রতারণা মামলায় গ্রেফতার সাহেদের মামলা তদন্তের জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন করে র‌্যাব। এই আবেদনের পর র‌্যাবকে তদন্তের অনুমোদন দেওয়া হয়।
শাহেদকে গ্রেফতারের পর থেকে শুরু করে র‌্যাব কাজ করেছে। মামলার তদন্ত প্রক্রিয়ায় ডিবিও তদন্ত করছিল। গত পাঁচ দিন আমাদের কাছে রিমান্ডে ছিল শাহেদ। অনেক তথ্য আমরা পেয়েছি। আজকের মধ্যে হয়তো র‌্যাবে আসামি হস্তান্তর করা হবে বলেও জানান তিনি।
এর আগে, করোনা টেস্ট পরীক্ষা প্রতারণার অভিযোগে বুধবার (১৫ জুলাই) ভোরে সাতক্ষীরার সীমান্তের দেবহাটা থানার সাকড় বাজারের পাশে অবস্থিত লবঙ্গপতি এলাকা থেকে নৌকায় পালিয়ে যাওয়া অবস্থায় রিজেন্ট হাসপাতালের শাহেদকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। এরপরে বৃহস্পতিবার (১৬ জুলাই) শাহেদকে ১০ দিনের রিমান্ডে পাঠায় আদালত।
গত ৬ জুলাই করোনা পরীক্ষার ভুয়া রিপোর্ট দেয়ার অভিযোগে র‍্যাব উত্তরার রিজেন্ট হাসপাতালে অভিযান চালায়। এরপর রিজেন্ট হাসপাতালের উত্তরা ও মিরপুর শাখা সিলগালা করে দেয়া হয়। ৭ জুলাই করোনা পরীক্ষা না করেই সার্টিফিকেট প্রদানসহ বিভিন্ন অভিযোগে রিজেন্ট হাসপাতালের বিরুদ্ধে উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলা করে র‌্যাব। মামলায় রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান শাহেদ করিমকে প্রধান আসামি করে ১৭ জনের নাম উল্লেখ করা হয় এজাহারে।

 






News Room - Click for call