Main Menu

রাজৈরে ৩০০ মিটার রাস্তাসহ বসতবাড়ি ও ফসলি জমি নদীতে বিলিন, নেওয়া হয়নি ব্যবস্থা

মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার টেকেরহাট থেকে শ্রীনদী যাতায়াতের এক সময়ের প্রধান সড়ক প্রায় ৩০০ মিটার নদীর স্রোতে ভেঙ্গে গেছে। একই সাথে বিলিন হয়েছে কৃষকদের ২০ বিঘা জমি ও ৩টি ঘর। বিগত ৩ বছরেও প্রশাসন এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা কোন ব্যবস্থা নেয়নি। ভাঙ্গনের কবল থেকে বাঁচতে পাচ্ছেনা কোন সহযোগিতা।

সরজমিনে দেখা গেছে, পানি বাড়তে থাকায় উপজেলার ইশিবপুর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের মল্লিক কান্দি ও গাংকান্দি শাখারপাড়ের মাঝামাঝি এলাকার আরো ৮টি বাড়ি ঝুঁকিতে রয়েছে। এরমধ্যে অতি ঝুঁকিপূর্ণ সুনু হাওলাদার, করিম মল্লিক, নিতাই রায়, সানো মল্লিক, বিরাজ ও হিরু খালাসীর পরিবার। ইতোমধ্যে আশংকাজনক দুটি ঘর সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

ক্ষতিগ্রস্থরা জানায়, বিগত ৩/৪ বছর যাবত আমরা ভাঙ্গন কবলিত হয়ে সর্বস্ব হারাচ্ছি। বিচ্ছিন্ন হয়ে যাচ্ছে যোগাযোগ ব্যবস্থা। বারবার আবেদন করে শুধু আশ্বাস ছাড়া প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের কোন সহযোগিতা পাইনি। কিন্তু সরকারিভাবে কোন ব্যবস্থা না নিলে শেষ সম্বলটুকুও হারিয়ে সংসার নিয়ে রাস্তায় নামতে হবে।

মাদারীপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী পার্থ প্রতিম সাহা বলেন, ভাঙ্গনপ্রবণ এলাকাগুলোর জন্য একটা প্রকল্প তৈরি আছে। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারনে কাজ বন্ধ থাকায় সম্পূর্ন করতে পারিনি। তবে অনুমোদন হলে দুই মাসের মধ্যে নদী সংরক্ষণের জন্য ব্লগ ড্রেসিং করা হবে।






News Room - Click for call