Main Menu

উলিপুরে হুইলচেয়ার বিতরণ করলেন RRF ব্রাঞ্চের এসপি মেহেদুল করিম

কুড়িগ্রাম জেলার উলিপুর উপজেলার থেতরাই ইউনিয়নের হোকডাঙ্গা মৌজার (৮ নং ওয়ার্ড) নদী ভাঙ্গন কবলিত দারিদ্র্য পরিবারের ৩ প্রতিবন্ধী শিশু যথাক্রমে সামছুল আলম (বাবু), লিটন মিয়া ও লিমা আক্তার কে হোকডাঙ্গা দালাল পাড়া জামে মসজিদ সংলগ্ন মাঠে সকাল ১১ ঘটিকায় কুড়িগ্রাম জেলার সাবেক পুলিশ সুপার, চর চ্যারিটি ফর চেইঞ্জ এ-র এডমিন, RRF ব্রাঞ্চের এসপি জনাব, মেহেদুল করিম স্যারের অর্থায়নে তিনটি হুইলচেয়ার প্রদান করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, তারুণ্যের ঐক্য সমাজকল্যাণ সোসাইটি’র সভাপতি আতাউর রহমান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মোহাইমিনুল ইসলাম, রাহিমুল ইসলাম (রাসেল), অর্থ-সম্পাদক সফিকুল ইসলাম (সূজন), আশরাফুল ইসলাম, উপদেষ্টা মণ্ডলীর সভাপতি জনাব, মমিন উদ্দিন ব্যাপারী, আবু তালেব ব্যাপারী, মোকলেছুর রহমান প্রমুখ।

তারুণ্যের ঐক্য সমাজকল্যাণ সোসাইটি’র সহ-সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, তিন জনের পরিবারে দেখা দেয় অভাব অনটন, দিন আনে দিন খায়, কোন রকম জীবন যাপন। কোন বেলা খাবার জোটে, কোন বেলা অনাহারেও থাকতে হয়।

এমনিতেই নদী ভাঙ্গনে সব শেষ, অন্যদিকে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে আয় রোজগারের পথও বন্ধ, গ্রামে তেমন কাজ কাম না থাকায় ঘরে খাবারের সংকট দেখা দেয়, খুব কষ্টে অতিবাহিত হচ্ছিলো তাদের দিনগুলো, তাদের দুঃখ দুর্দশা গুলো দেখে নিজেদের সাধ্য মোতাবেক পাশে দাঁড়ায় “তারুণ্যের ঐক্য সমাজকল্যাণ সোসাইটি” এবং “চর চ্যারিটি ফর চেঞ্জ” থেকে কয়েক দফায় প্রাপ্ত খাদ্য সামগ্রী গুলো তাদের সহ থেতরাই ইউনিয়নের অসহায় মানুষের ঘরে পৌঁছে দেওয়া হয়। এমতাবস্থায় ঐ তিন জন প্রতিবন্ধীর সাময়িক চলাফেরা করাও খুব কষ্টকর।

ওদের পিছনে আরও তিন জনকে সময় ব্যয় করতে হয় তাদের চলাচলের সুবিধার্থে তিনটি হুইলচেয়ার চেয়ে মানবিক পুলিশ সুপার মেহেদুল করিম স্যারের নিকট আবেদন করা হলে তিনি মানবিক দৃষ্টিকোন থেকেই পর্যবেক্ষণ করেন, আমাদেরকে খালি হাতে ফিরিয়ে দেননি, বরং নিজ দ্বায়িত্বে বাড়িতেই পোঁছে দিয়েছেন, চেয়ার পেয়ে তিন প্রতিবন্ধীদের মাঝে খুশির ঝলক দেখা যায়, তাদের পরিবারের সদস্যরা খুশি হয়ে স্যারের জন্য দোয়া করছেন।

তিনি আরও বলেন, স্যার ব্যস্ততম দ্বায়িত্বশীল একজন মানুষ হয়েও তাঁর কথায় কোনো রাগ নেই, উত্তাপ নেই, আছে শুধু বুক ভরা দয়া, মায়া ও ভালোবাসা। হাজারো ব্যস্ততার মাঝে থেকেও গরীব, দুঃখীদের প্রতি আপনার অফুরন্ত ভালোবাসাকে তারুণ্যের ঐক্য সমাজকল্যাণ সোসাইটির (TOSKS) পক্ষে থেকে স্যালুট জানাই, ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি।

একপর্যায়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মানবিক পুলিশ সুপার মেহেদুল করিম স্যার তাদের পাশে দাঁড়ানোর সুযোগ করে দেওয়ার জন্য তারুণ্যের ঐক্য সমাজকল্যাণ সোসাইটি কে ধন্যবাদ জানিয়েছেন, তিনি আশাব্যক্ত করছেন চেয়ার গুলো তাদের চলাফেরায় সহজ করে দিবে।

তারুণ্যের ঐক্য সমাজকল্যাণ সোসাইটি’র সাধারণ সম্পাদক সামছুল আলম বলেন, কুড়িগ্রামের মানুষের প্রতি স্যারের অফুরন্ত ভালোবাসা রয়েছে। তারুণ্যের ঐক্য সমাজকল্যাণ সোসাইটি’র পাশে থাকার জন্য স্যারকে বিনীত অনুরোধ করছি।

উল্লেখ্য; গত ১ সপ্তাহ আগেই তিস্তার করাল গ্রাস থেকে রক্ষা পায়নি প্রতিবন্ধী শিশু লিটনের বাড়ি, দিশেহারা হয়ে অন্যের সামান্য একটু জমিতে আশ্রয় নিয়ে জীবন যাপন করতেছেন।






News Room - Click for call