Main Menu

কাঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুটে ফেরি থেকে নামিয়ে নববধূকে গণধর্ষণ

মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার কাঠালবাড়ি-শিমুলিয়া নৌরুটে ফেরি থেকে ফুসলিয়ে নামিয়ে চরের মধ্যে আটকে রেখে এক গৃহবধূকে তিন বখাটে যুবক দলবেধে ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত মঙ্গলবার (৭ জুলাই) রাত ৯ টার দিকে শিবচরের কাঁঠালবাড়ী এলাকায় চরের মধ্যে ওই গৃহবধূকে নিয়ে দলবেধে ধর্ষণ করে। এ ঘটনার ধর্ষনকারী ৪ যুবক মাসুদ মোল্লা, মাহবুব মৃর্ধা, নুর মোহাম্মদ হাওলাদারকে ও স্পিডবোট চালক ফারুককে জড়িত থাকার অভিযোগে কাঠালবাড়ি থেকে গ্রেফতার করেছে শিবচর থানা পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত মাসুদ কাঠালবাড়ী এলাকার ফকির কান্দি গ্রামের তনু মোল্লার ছেলে। মাহাবুল মৃধা একই এলাকার রশিদ মৃধার ছেলে, নুর মোহাম্মদ হাওলাদার একই এলাকার সামাদ হাওলাদারের ছেলে ও ফারুক ওই এলাকার রব মিয়া খানের ছেলে।

শিবচর থানা পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, মঙ্গলবার রাতে কাঠালবাড়ি থেকে শিমুলিয়া যাওয়ার সময় মেয়েটির পরিচিত দানেস তালুকদার নামের এক আত্মীয় কাঠালবাড়ি ঘাটে একটি ফেরিতে তুলে দেয়। এসময় ফেরির পিছন দিয়ে ধর্ষনকারী বখাটে তিন যুবক মাসুদ মোল্লা, মাহবুব মৃর্ধা, নুর মোহাম্মদ হাওলাদার মেয়েটিকে দ্রুত পৌছে দেওয়ার কথা বলে একটি স্পিডবোটে করে নিয়ে যায়। পরে কিছুক্ষন যাওয়ার পরে স্পিডবোটের জ্বালানী ফুরিয়ে যাওয়ার কথা বলে স্পীডবোটটি চরে নোঙ্গর করা একটি লঞ্চের কাছে নিয়ে যায়। এসময় স্পীডবোটের চালক জ্বালানী আনতে গেলে এই সুযোগে ওই তিন যুবক ওই নববধুকে দলবেধে ধর্ষণ করে।

ধর্ষিতা মেয়েটির বাড়ি ঝিনাইদহ জেলায়। গত সপ্তাহ চাঁদপুর এলাকার এক যুবকের সাথে মেয়েটির সাথে বিয়ে হয়। মেয়েটির স্বামী ঢাকার কেরানীগঞ্জ এলাকায় একটি প্রজেক্টে শ্রমিকের চাকুরি করে।

গত তিনদিন আগে মেয়েটি তার চাচার বাসা খুলনায় একটি জরুরী কাগজ আনতে গিয়ে ফেরার পথে কাঠালবাড়ি এলাকার দানেস তালুকদারের সহযোগীতায় স্বামীর বাসা কেরানীগঞ্জ যাওয়ার জন্য কাঠালবাড়ি থেকে শিমুলিয়ার উদ্দেশ্যে ফেরিতে রওয়ানা দেয়। অপরদিকে ওই সময় রাসেল মিয়া শিমুলিয়া ঘাটে স্ত্রীর জন্য অপেক্ষা করছিলেন।

এদিকে বুধবার বিকেল পর্যন্ত ধর্ষিতার আত্মীয় স্বজন এলাকাবাসী ধর্ষনের ঘটনা নিয়ে কাঠালবাড়ি এলাকায় আপোষ রফার চেষ্টা চালায় বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। পরে বুধবার দুপুরে খবর পেয়ে শিবচর থানার উপ-পরিদর্শক বিষ্ণপদ হীরা সঙ্গীয় পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে যান।

উপ-পরিদর্শক বিষ্ণপদ হীরা জানান, ঘটনাস্থলে গিয়ে কাঠালবাড়িতে ধর্ষিতা মেয়েটিকেসহ ধর্ষনকারী তিন যুবক মাসুদ মোল্লা (২৫) মাহবুল মৃর্ধা (৩০) নুর মোহাম্মদ হাওলাদারকে (২৪)সহ স্পীডবোটের চালক ফারুকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসি।

শিবচর থানা অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম আজাদ জানান, ধর্ষণের ঘটনায় মাসুদ মোল্লা, মাহবুল মৃর্ধা ও নুর মোহাম্মদ হাওলাদার ও ফারুক নামের ৪ যুবককে আটক করা হয়েছে। মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।






News Room - Click for call