Main Menu

বান্দরবানে ৬ নেতাকর্মী হত্যার ঘটনায় খাগড়াছড়িতি মিছিল ও সমাবেশ

আবারো উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে পার্বত্য চট্টগ্রাম। মঙ্গলবার সকাল ৭টায় বান্দরবানে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি জেএসএস সন্তু লারমা গ্রুপের অস্ত্রধারীদের গুলিতে ৬ নেতাকর্মী হত্যার অভিযোগ এনে খাগড়াছড়িতে প্রতিবাদ মিছিল ও সমাবেশ জেএসএস (এমএন লারমা) সংস্কার গ্রুপ।

মঙ্গলবার (৭ জুলাই) বিকেলে বৃষ্টি উপেক্ষা করে খাগড়াছড়ি জেলা শহরের মহাজনপাড়াস্থ সূর্যশিখা ক্লাবের সামনে থেকে শুরু করে প্রতিবাদ মিছিলটি প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে শাপলা চত্ত্বর এসে সমাবেশ করে।

এতে পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (এমএন লারমা সংমর্থিত জেএসএস) জেলা শাখার এর সহ-সভাপতি সুভাষ চাকমার সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, সহযোগি সংগঠন পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি দীপন চাকমা, জেএসএস এম এন লারমা গ্রুপের জেলা কমিটির যুব বিষয়ক সম্পাদক প্রত্যয় চাকমা প্রমূখ।এই বিক্ষোভ মিছিলে ইউপিডিএফ গণতান্ত্রিক ও জেএসএস সংস্কারের অঙ্গ-সংগঠনের নেতাকর্মীরা অংশ নেয়।

এ সময় সমাবেশে বক্তরা, এ হত্যাকাণ্ডের জন্য সন্তু লারমাকে দায়ী করে নেতাকর্মীরা ঘটনার সাথে জড়িতদের দ্রুত আটকসহ দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবী জানান। সে সাথে সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন জেএসএস পাহাড়ে চুক্তির পর থেকে হত্যার রাজনীতিতে মেতে উঠেছে অভিযোগ তুলে ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত বন্ধ করা না হলে তার ফল শুভকর হবে বলেও জানিয়ে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া না হলে কঠোর কর্মসূচী দেওয়ার হুশিয়ারী দেন।

প্রসঙ্গত: বান্দরবানে মঙ্গলবার সকাল ৭টায় সন্ত্রাসীদের ব্রাশফায়ারে জেএসএস (এম এন লারমা) গ্রুপ ৬ নেতাকর্মী হত্যার ঘটনা ঘটে। এতে বান্দরবানের বাগমারায় জেএসএস এমএন লারমা গ্রুপের জেলা সভাপতি রতন তঞ্চগ্যাসহ ৬ নেতাকর্মী সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের ব্রাশ ফায়ারে নিহত হয়।






News Room - Click for call