Main Menu

বাগেরহাটে সরকারী খাল ও সুইচগেটের পানি আটকে মাছ স্বীকারের অভিযোগ

বাগেরহাট সদর উপজেলার বারুইপাড়া এলাকায় খননকৃত সরকারী খাল ও সুইচগেটের পানি আটকে মাছ স্বীকারের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে অবৈধভাবে সরকারী খালে মাছ স্বীকার ব্যক্তি লাভবান হলেও ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে শত শত কৃষক। ভুক্তভোগীর মধ্যে কেউ প্রতিবাদ করলে তার উপর নেমে আসে নির্যাতন। এতে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে প্রতিকার চেয়ে জেলা প্রশাসক বরাবার অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

অভিযোগে জানা যায়, সদর উপজেলার বারুইপাড়া ইউনিয়নের কার্ত্তিকদিয়া গ্রামের মৃত মজিদ মল্লিকের ছেলে আবুল কালাম মল্লিক অযোদ্ধা ভট্রপ্রতাপ এলাকায় মঠের কাটাখালটি দীর্ঘ বছর ধরে ব্যক্তি স্বার্থে দখলে নিয়ে মাছ স্বীকার করে আসছে। সম্প্রতি খালটি নতুন করে খনন করা হয়েছে।

সরকারী ভাবে ইজারা না দেওয়া হলেও এলাকার লোকজনকে মাছ ধরতে বাধা প্রদান করা হয়। কেউ যদি গড়া পাটা দেয় তাকে মোটা অঙ্কের টাকা দিতে হবে বলে হুমকি প্রদান করা হয়। এছাড়া কৃষকদের ফসল ফলানোর স্বার্থে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্মিত লাইপালা সুইচগেটটি ও তিনি দখল করে পানি আটকে রেখে নিজ ইচ্ছামত মাছ স্বীকার করে। এই বর্ষামৌসুমে সুইচগেট আটকে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি করায় এলাকায় শত শত জমির মালিক ও কৃষক ফসল ফলাতে পারছেনা।

স্থানীয় ভাবে বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যান ও মেম্বররা সমাধনের চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়। সাধারন জনগনকে স্বাধীন ভাবে মাছ শিকারের ব্যবস্থা ও লাউপালা সুইচগেটটি কৃষকদের স্বার্থে পানি ওঠা নামার ব্যবস্থা করার জোর দাবি জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা।

এ বিষয়ে বারুইপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান মল্লিক সরোয়ার হোসেন জানান, সরকারী খাল ও সুইচগেট নিয়ে যে সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে তার সমাধানের জন্য স্থানীয়রা জেলা প্রশাসক বরাবর আবেদন করেছেন। আশা করি জেলা প্রশাসক বিষয়টির সুষ্ঠু সমাধার করবেন।






News Room - Click for call