Main Menu

গোপালগঞ্জে মাদকদ্রব্যের অবৈধ পাচারবিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস পালন

সারাদেশের ন্যায় গোপালগঞ্জেও মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচারবিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস পালিত হয়েছে।

বর্তমানে করোনা পরিস্থিতির কারনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে সীমিতভাবে দিবসটি উদযাপিত হয়েছে।

এরই অংশ হিসেবে “শুদ্ধ জ্ঞানেই সঠিক যত্ন হবে, জ্ঞানের আলোয় মাদক দূরে রবে” এই প্রতিপাদ্য নিয়ে আজ বিকাল ৪টায় মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের গোপালগঞ্জ জেলা কার্যালয় আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে গোপালগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট অমিত কুমার বিশ্বাস উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, মাদক যে কোনো দেশের উন্নয়ন, শান্তি ও নিরাপত্তার জন্য হুমকি। মাদকের করালগ্রাস দেশের প্রাণশক্তি যুবসমাজকে ধ্বংসের মাধ্যমে উন্নয়নের পথকে বাধাগ্রস্ত করে।

তিনি আরো বলেন, মাদকের অপব্যবহার প্রতিরোধে নাগরিক সমাজের সর্বাত্মক সহযোগিতা অপরিহার্য। মাদকের অপব্যবহার এবং এর ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে জনগণকে সচেতন করার পাশাপাশি দেশকে মাদকমুক্ত রাখার অঙ্গীকারের বার্তা প্রতিটি জনপদে পৌঁছে দিতে হবে।

গোপালগঞ্জ জেলা মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক ইমরুল হাসান বলেন, মাদকের অপব্যবহার ও পাচার প্রতিরোধ করা অত্যন্ত জরুরি। অপব্যবহার প্রতিরোধে সকল শ্রেণি ও পেশার মানুষকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। মাদকদ্রব্য মানুষকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যায়। তাই মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও পাচার বন্ধ করে সুখী ও সুন্দর জীবন গড়ে তুলতে হবে।

মাদকের ক্ষেত্রে আমরা সবাই সোচ্চার, আমরা সবাই একত্রিত হয়ে মাদকদ্রব্য পরিহার করতে কাজ করছি। এক্ষেত্রে মিডিয়া অগ্রণী ভূমিকা পালন করছে।

তিনি গনমাধ্যমকর্মীদের ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, জানিয়ে বলেন, আমরা গোপালগঞ্জে মাদক বিষয়ে যে কাজ করছি, এব্যাপারে বিভিন্ন সময়ে তথ্য দিয়ে তারা আমাদেরকে সহযোগীতা করছে।

সর্বোপরি গোপালগঞ্জে মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান চলমান রয়েছে এবং তা অত্যন্ত সুন্দরভাবে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর ও পুলিশ বিভাগ সমন্বয় করে কাজ করছে। এছাড়াও মোবাইলকোর্ট বসিয়ে মাদকের বিরুদ্ধে কাজ করে যাচ্ছে।

আলোচনা শেষে গোপালগঞ্জ জেলা মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের কার্যালয়ে একটি গেষ্ট রুম উদ্বোধন করা হয়।

এতে এই জেলা থেকে বিভিন্ন জেলায় বদলি হওয়া মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের সদস্যরা এখানে সাক্ষী দিতে এসে হোটেলে থাকা নিয়ে সমস্যায় না পরে তাদের সমস্যার কথা ভেবে ৬৪টি জেলার ভিতর এই ১ম গোপালগঞ্জ জেলা মাদকদ্রব্য অধিদপ্তর এই উদ্যোগ গ্রহণ করে।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন গোপালগঞ্জ জেলা মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের পরিদর্শক মোঃ জাকিরুজ্জামান, উপ-পরিদর্শক মোঃ রফিকুল ইসলাম, সামাজিক সংগঠন আমরা সবাই পরের তরের সভাপতি শরিফুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আল-ইমরান সুমন প্রমুখ।






News Room - Click for call