Main Menu

রাজৈরে সুদ কারবারি ইকবালকে কুপিয়ে হত্যা ঘটনায় গ্রেফতার-২

মাত্র ৭০ হাজার পাওয়ানা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে দুই জনের মধ্যে মনমালিন্য সৃষ্টি হয়। তারই জের ধরে আজাদ, খোকন ও তাদের সহযোগিদের নিয়ে মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলার ইশিবপুর ইউনিয়নের বালিয়ার বিলের মুচারকান্দি ব্রীজের পাশে সোমবার (২২ জুন) রাতে ইকবাল মোল্লা (৪০) নামে এক ভাড়ায় মোটরসাইকেল চালক ও সুদের কারবারিকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

এ ঘটনায় বুধবার (২৪ জুন) নিহতের ভাই মঞ্জু মোল্লা বাদি হয়ে ১০/১২ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।

পুলিশ ঐদিন রাতে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে উপজেলার টেকেরহাট বন্দরে অভিযান চালিয়ে এ হত্যার সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে দুইজনকে গ্রেফতার করে।

গ্রেফতারকৃত উপজেলার শাখারপাড় গ্রামের মর্তুজা মোল্লার ছেলে আজাদ মোল্লা (২৫) ও মহেন্দ্রদী গ্রামের মোতালেব হাওলাদারের ছেলে খোকন হাওলাদারকে (২২) গ্রেফতারের পর ব্যাপক জিজ্ঞাবাদের মুখে হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার কথা পুলিশের কাছে স্বীকার করে।

পুলিশ তাদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত রক্তমাখা একটি শ্যাণ-দা, রক্তমাখা রশি ও একটি টর্চ লাইটসহ অন্যান্য জিনিসপত্র উদ্ধার করে। পরে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দী দেয়ার জন্য মাদারীপুর বিজ্ঞ আদালতে প্রেরন করে। আজ (২৫ জুন) বৃহস্পতিবার বিকালে জেলা পুলিশ সুপার এক প্রেস ব্রিফিং করে এ তথ্য জানান।

প্রেস ব্রিফিং এ জানায়, আসামী আজাদ মোল্লার কাছে ৭০ হাজার টাকা পেতেন নিহত ইকবাল মোল্লা। উক্ত পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে দুই জনের মধ্যে মনমালিন্য সৃষ্টি হয়। তারই জের ধরে আজাদ, খোকন ও তাদের সহযোগিদের নিয়ে ইকবালকে পরিকল্পিত ভাবে হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে বলে প্রাথমিক ভাবে পুলিশের নিকট স্বীকার করে এবং তাদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক আসামী আজাদের বাড়ি থেকে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত রক্তমাখা একটি (ধারালো অস্ত্র) শ্যাণ-দা, রক্তমাখা একটি রশি ও একটি টর্চ লাইটসহ অন্যান্য জিনিসপত্র উদ্ধার করা হয়। অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

উল্লেখ্য; উপজেলার বদরপাশা ইউনিয়নের উমারখালী গ্রামের সুন্দর মোল্লার ছেলে ইকবাল মোল্লা (৪০) ভাড়ায় মোটর সাইকেল চালাতেন এবং গ্রাম পর্যায়ে সুদে টাকার কারবার করতেন। সোমবার বিকাল ৪টার দিকে ইকবাল তার মোটর সাইকেল নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়। এর পর সে নিখোঁজ হয়। মঙ্গলবার সকালে পথচারীরা উপজেলার ইশিবপুর ইউনিয়নের শাখারপাড় নতুন রাস্তার পাশে ধানের জমিতে ইকবালের লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ এসে ইকবালের লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরন করে এবং রাস্তার পাশ থেকে ইকবালের ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটিও উদ্ধার করে।






News Room - Click for call